উত্তরপ্রদেশের সমাজবাদী সরকারের রাজত্বে প্রাথমিক স্কুলগুলি অপরাধের প্রধান আস্তানা হয়ে উঠছে৷ গ্রাম প্রধান যেখানে বসেন সেখানে থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে মোহনলালাগঞ্জ এলাকার বলসিংখেড়া গ্রামের প্রাথমিক স্কুল থেকে বৃহস্পতিবার উদ্ধার হল এক যুবতীর নগ্ন দেহ৷

মনে করা হচ্ছে যুবতীকে গণধর্ষণের পর খুন করা হয়েছে৷ স্কুলের বারান্দায় রক্ত ছড়িয়ে পড়েছিল৷ যুবতীর জামা ও চটি এলাকা থেকেই উদ্ধার করা হয় কিন্তু মৃতদেহের সনাক্তকরণ করা যায়নি৷

মোহললাল গঞ্জ এলাকার সিও রাজেশ যাদব জানিয়েছেন, বলসিংখেড়া গ্রামের প্রাথমিক স্কুলের চত্বরে স্থানীয় বাসিন্দারাই যুবতীর মৃতদেহ দেখতে পান৷

স্কুলের নিরাপত্তারক্ষী জহরলাল পুলিশে খবর দেয়৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ তদন্ত শুরু করে, তখনই যুবতীর জামা স্কুল চত্বর থেকেই উদ্ধার করা হয়৷ যদিও স্কুলের বাইরে থেকে যুবতীর চটি উদ্ধার করা হয়৷

স্কুলের বারান্দার প্রচুর রক্তের চিহ্ন পাওয়া গেছে৷ যুবতীর যৌন অঙ্গেও গভীর ক্ষতের চিহ্ন পাওয়া যায়৷ জিজ্ঞাসাবাদ করলেও যুবতীর সনাক্তকরন করা যায়নি৷ তদন্তের পর পুলিশ যুবতীর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়৷

গ্রামবাসীরা আশঙ্কা প্রকাশ করে জানিয়েছেন, যুবতীকে অপহরণ করে স্কুলে নিয়ে আসা হয়েছিল৷ এরপর তাকে ধর্ষণ করা হয় ও শ্বাসরোধ করে তার হত্যা করা হয়৷ পুলিশ জানিয়েছেন, ডাক্তারদের প্যানেলের মাধ্যমে যুবতীদের দেহের ময়নাতদন্ত করা হবে৷ রিপোর্টের মাধ্যমেই তার মৃত্যুর সঠিক জানা সম্ভব৷

পুলিশ যুবতীর দেহ সনাক্ত করার চেষ্টা করছে৷ মৃতদেহ উদ্ধারের খবর রাজধানীসহ আসপাশের বিভিন্ন জেলার পুলিশ থানায় জানানো হয়েছে৷ পুলিশ জানিয়েছেন, যুবতীকে সনাক্ত না করা গেলে তদন্তে এগোনো সম্ভব হবে না৷ –