Want to rape meসৌদি আরবঃ একটি ইসলামী দেশ হওয়ায় সৌদি আরবের আইন ব্যবস্থা শরিয়া উপর ভিত্তি করে ইসলামী আইনে প্রতিষ্ঠিত। ধর্ষণের দায়ে শাস্তি, বা হত্যা, মাদক পাচার, পায়ুকাম, ডাকাতি, এবং ধর্মত্যাগের মত অন্য কোন অপরাধের জন্য শিরশ্ছেদ করা হয়। এটা বলা হয় যখন শিরশ্ছেদ করা হয় তখন অপরাধীকে ঘুমের ঔষধ দেওয়া হয়। শাস্তি সবার সামনে সম্পন্ন করা হয় এবং এই সময় অপরাধীকে মক্কার দিকে করে হাঁটু গাড়া করে বসানো হয় ও এক কোপে জল্লাদ দ্বাদা শিরশ্ছেদ করা হয়।

চীনঃ চীনেও ধর্ষকে কঠোর শাস্তি দেওয়া হয়। ধর্ষণ একটি নৃশংস অপরাধ ও ধর্ষণকারীর দোষী সাব্যস্ত হলে তার মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করা হয়। একটি একক বুলেট দ্বারা ধর্ষকের ঘাড় ও স্পাইনাল কর্ডের সংযোগ স্থানে গুলি করে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। চীনে ধর্ষকে আরও শাস্তি দেওয়ার কথা শোনা যায়। একই শাস্তি অন্যান্য জঘন্য অপরাধের জন্যও দেওয়া হয়ে থাকে। আদালতের কার্যধারা খুব দ্রুত হয়ে থাকে। আদালতের কার্যধারা খুব দ্রুত হয় শেষ করা হয়ে থাকে।

উত্তর কোরিয়াঃ উত্তর কোরিয়ায় ধর্ষকের শাস্তি খুব দ্রত করা হয়। অপরাধীকে একটি ফায়ারিং স্কোয়াড দ্বারা তার মাথা বা অত্যাবশ্যক অঙ্গে গুলি করা হয় হয়। এতে অপেক্ষাকৃত দ্রুত আসামি নিহত ও ভুক্তভোগী তাৎক্ষণিক বিচার পায়

আফগানিস্তানঃ আফগানিস্তানে ধর্ষণের শাস্তি জন্য ইসলামী আইন অনুসরণ করা হয় অভিযুক্তে শাস্তি দিতে। ধর্ষককে ফাঁসি দেওয়া হয় অথবা বা মাথায় গুলিতে করে মারা হয়শাস্তি অপরাধ সংঘঠিত হওয়ার চার দিনের মধ্যে দেওয়া হয়।।

ঈরানঃ ইসলামী আইন অনুযায়ী ধর্ষকের জন্য মৃত্যুদণ্ড অপরিহার্য। ইরানেও ধর্ষণকারীকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। তাছাড়া অন্যান্য অপরাধের জন্য মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়ে থাকে।

গ্রীসঃ গ্রীসে ধর্ষণকারী কারাদন্দে দণ্ডিত করা হয়

ইজরায়েলঃ ইস্রায়েলে একজন ধর্ষণের আসামিকে সর্বনিম্ন চার বছর এবং সর্বাধিক ষোল বছরের কারাদন্দে দণ্ডিত করা হয়।

মিশরঃ মিশরও ধর্ষণের আসামিকে ফাঁসি দেওয়া হয়।

সংযুক্ত আরব আমিরাতঃ সংযুক্ত আরব আমিরাতে ধর্ষণের আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। ধর্ষকের ফাঁসি দেওয়া হয় এবং এই শাস্তি অপরাধের সাত দিনের মধ্যে কার্যকর হয়।

Want to rape me 2মার্কিন যুক্তরাস্ট্রেঃ মার্কিন যুক্তরাস্ট্রে ধর্ষণের শাস্তি যৌন হয়রানির বিভিন্ন ধরনের উপর নির্ভর করে প্রণয়ন করা হয়। শাস্তি প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় পর্যায়ের ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে ভাগ করা হয়। ধর্ষণের জন্য সর্বোচ্চ সাজা জেলে ৩০ বছর কারাদন্ড হতে পারে অন্যান্য অপরাধে জন্য মৃত্যুদন্ড হয়ে থাকে। কখনও কখনও ধর্ষণের শিকার ক্ষতিপূরণ নিয়ে মিমাংসা করে নেয়। এইসব ক্ষেত্রে, ধর্ষণকারী ১০০ দোররা এবং কখনও কখনও কারাদণ্ডে দ্বন্দিত হয়ে থাকে।

নেদারল্যান্ডসঃ যে কোনো ধরনের যৌন নির্যাতন বা জোরপূর্বক যৌন মিলন এমনকি ফরাসি কিসকেও নেদারল্যান্ডস এ ধর্ষণ হিসেবে গণ্য করা হয়। ভুক্তভোগীর বয়সের উপর নির্ভর করে ধর্ষকের শাস্তি হিসেবে চার থেকে ১৫ বছর পর্যন্ত কারাদন্ড দেওয়া হয়। এমনকি একজন পতিতাকে ধর্ষণ বা তাকে যে কোন হয়রানি করাকেও নেদারল্যান্ড অনেক অগ্রাধিকার দেওয়া হয়।

ফ্রান্সঃ ধর্ষণের আইন ও শাস্তি ফ্রান্সে আরোও অনেক বিস্তারিতভাবে সংজ্ঞায়িত। একজন ব্যক্তি যদি একটি ধর্ষণের ঘটনায় বিরক্তি প্রকাশ করে তবে তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয় এবং তার দশ বছরের কারাদন্ড হতে পারে। ধর্ষণের শিকার কেউ যদি মারা যায় তবে ধর্ষকের শাস্তি ৩০ বছর পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ধর্ষণের শিকার কারো উপর কোন প্রকার শারীরির নির্যাতন করা হলে ধর্ষককে বর্বরতার আইনে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের দেওয়া হয়।

রাশিয়াঃ রাশিয়ায় ধর্ষণকারীর জন্য কারাদন্ডের মেয়াদ তিন থেকে ছয় বছরধর্ষণের শিকার ব্যক্তি যদি ১৮ বছরের নিচে হয় বা ধর্ষণের পর কোন স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগে, তাহলে কারাদন্ডের সময় চার থেকে ১০ বছর। আর যদি ধর্ষণের পর মারা যায়, তবে কারাদন্ডের মেয়াদ আট থেকে ১৫ বছর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। আসামি ২০ বছরের জন্য যে কোন বৃত্তি বা পেশা থেকে নিষিদ্ধ করা হয়।

ধর্ষণের শিকার ব্যক্তির বয়স যদি ১৪ বছরের কম হয় এবং মারা যায় তবে আসামিকে ১২ থেকে ২০ বছরের কারাদন্ড দেওয়া হয়।

Source: Internate