ফড়িং মিডিয়া – অনলাইন ডেস্ক: এবার কি তাহলে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হতে যাচ্ছে? এমন প্রশ্ন এখন সারা বিশ্বজুড়েই। বিশেষ করে উত্তর কোরিয়া পরমানু হামলার জন্য প্রস্তুত ঘোষনা আসার পর থেকেই এ অবস্থার সৃষ্টি। অন্য দিকে আমেরিকাও তাদের প্রস্তুতি নেয়ায় আবহ এমন হয়েছে।

উত্তর কোরিয়া, সিরিয়া এবং আমেরিকাকে কেন্দ্র করে যে উত্তেজনার আবহ তৈরি হয়েছে তার ফলে একটা আশঙ্কা ঘুরপাক খাচ্ছে সবার মনে। তা হলে কি এ বার তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ লাগবে? এ বার সেই জল্পনাকে আরও উস্কে দিলেন ক্লেয়ারভয়ান্ট হোরাসিও ভিলেগাস নামে এক ভবিষ্যত্ বক্তা। তিনি এক জন স্বঘোষিত ‘ভগবানের দূত’। হোরাসিওর দাবি, আগামী ১৩ মে নাকি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের সূচনা হবে!

এক ব্রিটিশ সংবাদপত্রে দাবি করা হয়, ট্রাম্পই যে পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের বেশ কয়েক দিন আগেই তা জানিয়েছিলেন নাকি ইনিই। এই খবর সামনে আসতেই প্রচারে আসেন এই ভবিষ্যত্ বক্তা।

ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হওয়ার মতোই এ বার তিনি দাবি করেছেন, খুব শীঘ্রই তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হবে এবং সেটা হবে নাকি ট্রাম্পের জন্যই। এই মুহূর্তে সিরিয়া নিয়ে আমেরিকা ও রাশিয়ার মধ্যে একটা চাপানউতোর চলছে। অন্য দিকে, উত্তর কোরিয়াও আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে যে কোনও সময় যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত তারা। এমন একটা টানাপড়েনের আবহের মধ্যে হোরাসিওর বার্তা শোরগোল ফেলে দিয়েছে। তাঁর দাবি, সিরিয়াকে কেন্দ্র করেই শুরু হবে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ। এবং সেটা নাকি শুরু হবে একটা ‘মিথ্যা তথ্য’কে কেন্দ্র করেই!

হোরাসিওর মতে, সিরিয়ায় রাসায়নিক হামলা নিয়ে ক্ষমতাশালী দেশগুলি লড়াইয়ে মাতবে। সেই লড়াইয়ে জড়িয়ে পড়বে রাশিয়া, চিন এবং উত্তর কোরিয়া। এই যুদ্ধে ভয়ঙ্কর ক্ষতি ও প্রচুর মানুষের মৃত্যু হবে বলেও জানিয়েছেন হোরাসিও।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা